প্রশ্নোত্তরঃ তাফহীমূল কুরআন-সূরা কদর

১. আবু হাইয়ান সুরা কদর নাযিল হওয়ার ব্যাপারে বলেছেন, অধিকাংশ আলেমদের মতে এটা মাদানী সূরা। আবু হাইয়ান এই কথাটা কোন গ্রন্থে বলেছেন?
উত্তরঃ বাহরুল মুহীত।
২. সূরা কদর মদীনায় নাযিলকৃত প্রথম সূরা-এই কথাটি কে বলেছেন?
উত্তরঃ আলী ইবনে আহমাদুল ওয়াহেদী।
৩. ইমাম সুয়ুতী তার ইতকান গ্রন্থে সূরা কদর নাযিল হওয়ার ব্যাপারে বলেছেন, অধিকাংশ আলেমের মতে এটি মক্কী সূরা। তিনি কার রেফারেন্সে এই কথাটি উল্লেখ করেছেন?
উত্তরঃ আল মারওয়াদী।
৪. সূরা কদরের বিষয়বস্তু কি?
উত্তরঃ লোকদের কুরআন মজীদের মূল্য, মর্যাদ ও গুরুত্ব সম্পর্কে সচেতন করা।
৫. “আমি এটি নাযিল করেছি” একথার মর্মার্থ কি?
উত্তরঃ এটি মুহাম্মদ সা. এর রচনা নয়। বরং এটি আমিই নাযিল করেছি।
৬. কারা নিজেদের অজ্ঞতার কারণে মুহাম্মদ সা. এর পেশকৃত এই কিতাবকে নিজেদের জন্য একটি বিপদ মনে করছে?
উত্তরঃ মক্কার কাফেররা।
৭. আল্লাহর সমস্ত ফায়সালার মূল লক্ষ্য কি?
উত্তরঃ কল্যাণ।
৮. আল্লাহ যদি কোন জাতিকে ধ্বংস করার ফায়সালাও করেন, তাহলে কেন করেন?
উত্তরঃ মানুষের কল্যাণের জন্য।
৯. কদরের রাতের ২টি অর্থ। এক. এটি এমন একটি রাত যে রাতে তকদীরের ফায়সালা করা হয়। দ্বিতীয় অর্থ কি?
উত্তরঃ এটি বড়ই মর্যাদা, মহত্ব ও শ্রেষ্টত্বের রাত।
১০. أَنزَلْنَاهُ অর্থ কি?
উত্তরঃ আমি একে নাযিল করেছি।
১১. شَهْرُ رَمَضَانَ الَّذِي أُنزِلَ فِيهِ الْقُرْآنُ অর্থ কি?
উত্তরঃ রমজান মাসে কুরআন নাযিল করা হয়েছে।
১২. কদরের রাতকে সূরা দোখানে কি নামে আখ্যায়িত করা হয়েছে?
উত্তরঃ মুবারক রাত।
১৩. إِنَّا أَنزَلْنَاهُ فِي لَيْلَةٍ مُّبَارَكَةٍ “অবশ্যই আমি একে একটি বরকতপূর্ণ রাতে নাযিল করেছি”- এটি কোন সূরার আয়াত?
উত্তরঃ সূরা দোখান।
১৪. এই রাতে কুরআন নাযিল করার অর্থ দুইটি। ইবনে আব্বাসের মতে, এই রাতে সমগ্র কুরআন ওহীর ধারক ফেরেশতাদেরকে দিয়ে দেয়া হয়। কিন্তু ইমাম শা’বীর মতে আরেকটি অর্থ আছে-তা কি?
উত্তরঃ এই রাত থেকেই কুরআন নাযিলের সুচনা হয়।
১৫. কদরের রাতে কুরআনের কতটি আয়াত নাযিল হয় এবং তা কোন সূরার?
উত্তরঃ ০৫টি আয়াত। সূরা আল আলাকের।
১৬.  فِيهَا يُفْرَقُ كُلُّ أَمْرٍ حَكِيمٍ আয়াতটির অর্থ কি?
উত্তরঃ এই রাতে সব ব্যাপারে জ্ঞানগর্ভ ফায়সালা প্রকাশ করা হয়ে থাকে।
১৭. ইমাম যুহরীর মতে কদর শব্দের অর্থ কি?
উত্তরঃ শ্রেষ্টত্ব ও মর্যাদা।
১৮. কদরের রাত কোন রাত? এ ব্যাপারে কতটি মতের সন্ধান পাওয়া যায়?
উত্তরঃ ৪০টি মত।
১৯. কদরের রাত সম্পর্কে হযরত আবু হুরায়রা রা. এর দুইটি হাদীস রয়েছে। একটি হাদীসের বর্ণনা হচ্ছে, সেটি রমযানের শেষ রাত। অপর বর্ণনাটি কি?
উত্তরঃ সেটি সাতাশের বা উনত্রিশের রাত।
২০. উবাই ইবনে কা’ব রা. এর বক্তব্য অনুযায়ী কদরের রাত কোনটি?
উত্তরঃ সাতাশের রাত।

One thought on “প্রশ্নোত্তরঃ তাফহীমূল কুরআন-সূরা কদর”

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s